ঢাকাবুধবার , ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মেহেরপুরের মাদক মামলায় তদন্ত কর্মকর্তার দূর্নীতি

আজকের বিনোদন
ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৪ ৫:২৯ অপরাহ্ণ । ৪৫ জন
Link Copied!
দৈনিক আজকের বিনোদন সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মেহেরপুর জেলা প্রতিনিধিঃ
মেহেরপুরে মামলার চাঞ্চল্যকর ফেনসিডিল উদ্ধারের ঘটনায় মূল আসামীকে বাদ দিয়ে আদালতে চার্জসিট দেওয়ায় ফেঁসে গেলেন তদন্ত কর্মকর্তা গাংনী থানার এসআই স্বপন কুমার বিশ্বাস। এসআই স্বপন কুমার বিশ্বাস বর্তমানে মাগুড়া থানায় কর্মরত রয়েছেন।
ফেনসিডিল উদ্ধারের ঘটনায় আদালত পরিদর্শক পদমর্যাদার নিচে নয় এমন কর্মকর্তা দিয়ে পূর্ণ তদন্ত করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। একই সাথে ফেনসিডিল উদ্ধার মামলার পূর্ণ তদন্ত ও এস আই স্বপন কুমার বিশ্বাসের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণের আদেশ দেওয়া হয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুরে মেহেরপুর সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোঃ আব্দুর রহমান সরদার এই আদেশ দেন। আদেশে তিনি গাংনী থানার ফেনসিডিল মামলার পূর্ণ তদন্ত ও এস আই স্বপন কুমার বিশ্বাসের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেন।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ২৭ অক্টোবর গাংনী উপজেলার সওড়াতলা গ্রামে ফেনসিডিল পাচার হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির নায়েব সুবেদার জাকির হোসেন সঙ্গীও ফোর্স নিয়ে অভিযান চালান। ঐসময় বিজিবির আগমনী টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা ৬ বস্তা ফেনসিডিল ফেলে পালিয়ে যায়। কিন্তু টস লাইটের আলোতে সুবেদার জাকির হোসেন দুইজন ফেনসিডিল ব্যবসায়ীকে চিহ্নিত করেন। আসামিরা পালিয়ে গেলেও সেখান থেকে ৫শ ৯৫ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে গাংনী থানায় ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯ (১) এর ৩ (খ) ধারায় মামলা দায়ের করেন।
তিনি মামলায় শরিফুল ইসলাম ও মোহাম্মদ রুবেলের নাম উল্লেখ করেন। বিষয়টি তৎকালীন গাংনী থানার এস আই স্বপন কুমার বিশ্বাস মামলা তদন্তের দায়িত্ব পান। তদন্তকারী কর্মকর্তা সম্পূর্ণ পরিকল্পিত উপায়ে কতিপয় সাক্ষীদের কার্যবিধির ১৬১ ধারায় জবানবন্দি তৈরি করেন এবং বেআইনীভাবে প্রধান আসামি শরিফুল ইসলামকে বাদ দিয়ে অপর আসামি রুবেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। ফলে এই আদালতের ধারণা তদন্তকারী কর্মকর্তা একটা বড় ধরনের মাদক মামলার প্রধান আসামি কাছ থেকে অনৈতিকভাবে লাভবান হয়ে অথবা অন্য কোনভাবে প্রভাবিত হয়ে সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে মামলার ৩১২ নং অভিযোগ পত্রে অভিযোগ দায় থেকে ২০১৮ সালের ২৫ ডিসেম্বর মামলার মূল আসামি শরিফুল ইসলামকে অব্যাহতের সুপারিশ করেন।
বিজ্ঞ আদালত মামলাটি একজন পুলিশ পরিদর্শক মহিলা পদমর্যাদার নিম্নে নহে এমন কোন কর্মকর্তার মাধ্যমে পূর্ণ তদন্তের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য এই মামলার আদেশ সহ সংশ্লিষ্ট কাগজপত্রের ফটোকপি পুলিশ সুপার মেহেরপুর বরাবর প্রেরণ করার আদেশ দেন । আদেশে মেহেরপুরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আবদুর রহমান সরদার সুষ্ঠু ও ন্যায় বিচারের সাথে বিপুল পরিমাণ মাদক এর মামলাটি বিধি মোতাবেক পুনঃতদন্ত হওয়া আবশ্যক মর্মে নিবেদন করেন এবং এক আদেশনামার মাধ্যমে তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই স্বপন কুমার বিশ্বাস (বিপি-৭৭৯৪০২৫৪৫৬) কর্তৃক ৫৯৫ বোতল ফেনসিডিলের মামলার প্রধান আসামিকে বেআইনিভাবে Not Sent Up করার দায়ে বিধি মোতাবেক তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ করে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশ সুপার মেহেরপুর কে নির্দেশ দিয়েছেন।