ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
  • অন্যান্য

পঙ্গু প্রেমী রানী করকে হুইল চেয়ার দিলেন ইউপি চেয়ারম্যান নাহিদ

আজকের বিনোদন
ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২৪ ১০:১০ পূর্বাহ্ণ । ৯ জন
Link Copied!
দৈনিক আজকের বিনোদন সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মো.সাইদুল ইসলাম, (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:
দীর্ঘদিন প্যারালাইসিস হয়ে বিছানায় থাকার পর অবশেষে গরিব-অসহায় প্রেমী রানী কর কে নতুন একটি হুইল চেয়ার দিয়ে স্বপ্ন পূরণ করল মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সিবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাহিদ আহমেদ তরফদার। প্যারালাইসিস প্রেমী রানী কর এর বাড়ি উপজেলার মুন্সিবাজার ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের মির্জানগর এলাকায়।
বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারী ) সকাল ১১টায় হুইল চেয়ারটি পেয়ে খুশিতে আবেগে উৎফুল্ল হয়ে পড়েন প্যারালাইসিস হয়ে বিছানায় থাকা প্রেমী রানী কর ও তার পরিবার।
স্থানীয় সূত্র জানায়, প্যারালাইসিস রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রেমী রানী কর (৭৫) অচল। দীর্ঘদিন সেই রোগের কারণে বিছানায় পড়ে আছেন তিনি। গরিব, অসহায় পরিবার হুইল চেয়ার কেনার সামর্থ্য না থাকায় বিছানায় সারাদিন কাটে প্রেমী রানী কর এর। বিছানায় থাকতে থাকতে শরীরের বিভিন্ন অংশে পছন ধরার উপক্রম হয়ে আসছে। বিভিন্ন জায়গাতে ধরনা দিলেও তার ভাগ্যে জোটেনি হুইল চেয়ার। বিষয়টি জানতে পেরে ইউপি চেয়ারম্যান নিজ অর্থে একটি হুইল চেয়ার দিয়ে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন প্রেমী রানী কর দিকে। এতে তার পরিবারের দুঃখের কিছুটা হলেও অবসান হলো।
প্রেমী রানী কর বলেন, ‘কোনো রকমেই খেয়ে না খেয়ে বেঁচে আছি। তার ওপর ওষুধপত্র কিনতে হয়। দীর্ঘদিন ধরে আমি অচল। আমি হাঁটাচলা করতে পারি না। হুইল চেয়ার কেনারও সামর্থ্য নেই। মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও আমার ভাগ্যে জোটেনি। আমাদের চেয়ারম্যান আমার জন্য নতুন একটি হুইল চেয়ার নিয়ে আসায় আমি খুবই খুশি হয়েছি। চেয়ারম্যানের জন্য অনেক আর্শীবাদ রইল। এই গরিব অসহায় মানুষটাকে সহযোগিতা করায় ভগবান যেন নাহিদ আহমেদ তরফদারকে ভালো রাখেন এবং সুস্থ রাখেন ভগবান কাছে আমার এটাই চাওয়া।’
ইউপি চেয়ারম্যান নাহিদ আহমেদ তরফদার বলেন, ‘আমি যখন জানতে পারি মুন্সিবাজারের জুনেদ ট্রাভেলস এর স্বত্বাধিকার জুনেদ আহমেদ (চাচা)র মাধ্যমে। প্রেমী রানী কর একটি হুইল চেয়ারের জন্য বহুদিন ধরে ঘুরছেন। কিন্তু কেউ তাকে হুইল চেয়ার দেয়নি। প্যারালাইসিসের কারণে দুই পা অচল। হাঁটতে পারেন না। সব সময় বিছানায় শুয়ে থাকেন। এই খবর পেয়ে নিজ অর্থে নতুন একটি হুইল চেয়ার ক্রয় করে তার বাড়িতে নিয়ে হাজির হই। হুইল চেয়ারটি পেয়ে প্রেমী রানী করও মহাখুশি হয়েছেন।