ঢাকাশনিবার , ২৩ মার্চ ২০২৪
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ইসলাম প্রতিষ্ঠায় মা খাদিজা (রাঃ) বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন- সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী

আজকের বিনোদন
মার্চ ২৩, ২০২৪ ২:৪২ পূর্বাহ্ণ । ৩৮ জন
Link Copied!
দৈনিক আজকের বিনোদন সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মাকসুদেল হোসেন খান, ঢাকা:
মাইজভাণ্ডার শরীফের সাজ্জাদানশীন, ড. সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী মাইজভাণ্ডারী ১০ রমজান মা খাদিজা (রাঃ) এর পবিত্র ওফাত দিবস উপলক্ষ্যে রাজধানীর উত্তরখানের কাচকুঁড়াতে মইনীয়া সাইফিয়া হেফজখানা ও এতিমখানা কমপ্লেক্স আয়োজিত এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহ্ফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, প্রিয় নবিজী (দ.) এর চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য ও সততায় মুগ্ধ হয়ে ধনী পরিবারের কণ্যা হযরত মা খাদিজা (রাঃ) [ ৫৫৬-৬১৯ ] তার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তিনিই সর্বপ্রথম ইসলাম গ্রহণকারী ব্যক্তি।
নবুয়্যতপ্রাপ্তি ও ইসলাম প্রচারের ক্ষেত্রে মহানবী (দ) যে দুর্গম ও কণ্টকময় পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছিলেন, সে কঠিন মুহূর্তে তিনি সকল প্রতিকূলতাকে জয় করে সবসময় মহানবী (দ) এর পাশে ছিলেন। উঁচু হেরা পাহাড়ের গুহার সেই বন্ধুর পথ তিনি প্রতিদিন পাড়ি দিতেন শুধুমাত্র রাসুলে পাক (দ) এর প্রতি তার অসীম ভালোবাসার জন্য।সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী মাইজভাণ্ডারী আরো বলেন,”বিশেষত, ইসলামের বাণী প্রচারের সূচনালগ্নে প্রিয় নবিজী (দ) যখন কাফিরদের অত্যাচার ও বিদ্বেষের  তীরের আঘাতে জর্জরিত, তখন প্রেরণার আলোকবর্তিকা হয়ে উঠেছিলেন মা খাদিজাতুল কুবরা (রাঃ)।
প্রিয় নবিজী (দ) এর প্রতি আত্নত্যাগের জন্যই তিনি লাভ করেছেন, ‘উম্মুল মু’মিনীন’ বা ‘বিশ্বাসীদের মা’ এর মহৎ মর্যাদা। তিনি নিজের সব ধন-সম্পদ ইসলামের প্রচারের লক্ষ্যে রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) কে হস্তান্তর করেন। এত ধনী পরিবারের সন্তান হয়েও মহানবী (দ) এবং ইসলামের জন্য তিনি রাজত্ব ছেড়ে দারিদ্র্যকে আলিঙ্গন করেছেন। প্রিয় নবিজী (দ) মাত্র ২৩ বছরে তৎকালীন বর্বর আরব জাতিকে ইসলামি চেতনায় উজ্জীবিত একটি মানবিক জাতিতে রূপান্তর করেছিলেন অগণিত ত্যাগ তিতিক্ষার বিনিময়ে।
১৪০০ বছর আগে তিনি যে আদর্শ প্রতিষ্ঠা করে গেছেন, আজও তার অনুসরণে বিশ্ববাসী পাচ্ছে মুক্তির দিশা। আজ ইসলামের পতাকা বিশ্বের কোণে কোণে পৌঁছে গিয়েছে। আর এ অনন্য সফলতার পেছনে হযরত মা খাদিজাতুল কুবরা (রাঃ) এর অবদান অনস্বীকার্য। তার জীবনাদর্শ থেকে আমরা প্রিয় নবিজী (দ) ও ইসলামের প্রতি আমাদের ভালোবাসা কেমন হওয়া উচিত তার যেমন শিক্ষা পাই, তেমনি আদর্শ মা এবং দাম্পত্য জীবনকেও রঙিনভাবে সাঁজাতে পারি। যে দিক থেকেই বিশ্লেষণ করা হোক না কেন, হযরত মা খাদিজাতুল কুবরা (রাঃ) নিঃস্বার্থ ভালোবাসার দেদীপ্যমান নিদর্শন আমাদের মাঝে রেখে গেছেন।