ঢাকাসোমবার , ২৯ জানুয়ারি ২০২৪
  • অন্যান্য

প্রধান শিক্ষকের পদত্যাগের দাবীতে রাস্তায় নামলেন শিক্ষার্থীরা

আজকের বিনোদন
জানুয়ারি ২৯, ২০২৪ ৪:৩৮ পূর্বাহ্ণ । ৩৫ জন
Link Copied!
দৈনিক আজকের বিনোদন সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আশিকুর রহমান :-

নরসিংদী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ে প্রবেশে বাধা, শিক্ষার্থীদের টাকা আত্মসাৎ, নিম্নমানের খাবার পরিবেশন ও প্রধান শিক্ষকের অসৌজন্যমূলক আচরণসহ বিভিন্ন অভিযোগ এনে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শিউলি আক্তার এর পদত্যাগের দাবিতে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচী পালন করছেন শিক্ষার্থীরা।
রবিবার (২৮ জানুয়ারি) সকাল থেকে শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে জড়ো হতে থাকেন। পরে বিদ্যালয় প্রাঙ্গন থেকে তারা বাদ্যযন্ত্র ও বিভিন্ন শ্লোগান সম্বলিত প্লেকার্ড হাতে নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এসে অবস্থান নেয়। এসময় শিক্ষার্থীরা প্রধান শিক্ষকের পদত্যাগের দাবীতে শ্লোগান দিতে দিতে কার্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে বসে পড়েন এবং সেখানে দীর্ঘসময় অবস্থান নেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার একই দাবীতে শিক্ষার্থীরা ওই স্কুলে বিকেল থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচী ও বিক্ষোভ করে। পরে শিক্ষার্থীরা জেলা প্রশাসক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন এবং সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসমা সুলতানা নাসরিন এর আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা রাত সাড়ে ৮টায় অবস্থান কর্মসূচী তুলে নিয়ে বাড়ী ফিরে যান। বিক্ষোভে অংশ নেওয়া পরীক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, বৃহস্পতিবার বিকেলে আমাদের বিদায় অনুষ্ঠান ও মিলাদ মাহফিলের কথা ছিল। এ অনুষ্ঠানের জন্য আমাদের কাছ থেকে প্রধান শিক্ষক চাঁদা নেয়। কিন্তু তিনি চাঁদা নিয়েও বিদায় অনুষ্ঠান করেননি। এমনকি প্রথমে আমাদের বিদ্যালয়ে প্রবেশ করতেও দেননি। প্রধান শিক্ষক বিভিন্ন অযুহাত দেখিয়ে আমাদেরকে বিদ্যালয়ের একটি হলরুমে নিয়ে গিয়ে ৩ জন শিক্ষক দিয়ে তিন মিনিটের একটি মিলাদ অনুষ্ঠান করেন।
জেলা প্রশাসক ড.বদিউল আলম বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবির বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসমা সুলতানা নাসরিনকে প্রধান করে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৫ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন প্রাপ্তির প্রেক্ষিতে প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এ বিষয়ে জানতে প্রধান শিক্ষিকা শিউলি আক্তারের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলে তিনি তা রিসিভ করেননি।