ঢাকাসোমবার , ২৯ এপ্রিল ২০২৪
  • অন্যান্য

সফল সমাপ্তি হয়েছে কেন্দুয়ার জালালমেলা

আজকের বিনোদন
এপ্রিল ২৯, ২০২৪ ৬:৩৯ পূর্বাহ্ণ । ৫৬ জন
Link Copied!
দৈনিক আজকের বিনোদন সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মহিউদ্দিন সরকারঃ কেন্দুয়া (নেত্রকোনা)প্রতিনিধিঃ
একুশে পদকপ্রাপ্ত আত্মসন্ধানী বাউল সাধক জালাল উদ্দিন খাঁ’র ১৩০তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে নেত্রকোনার কেন্দুয়া জয়হরি স্প্রাই সরকারি উচ্চবিদ্যালয় খেলার মাঠে ৩দিন ব্যাপী জালাল মেলার আয়োজন করেন নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলা প্রশাসন। গত ২৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার হতে ২৭ এপ্রিল/২০২৪ শনিবার গভীর রাত পর্যন্ত চলে এই মেলা। জালাল মেলা উদ্বোধন করেন নেত্রকোনা-৩ (কেন্দুয়া-আটপাড়া)  আসনের সংসদ সদস্য ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টু। এ দিন দুপুরে কেন্দুয়া উপজেলার সিংহেরগাঁও গ্রামে সাধকের বাড়িতে নির্মিত জালাল উদ্দিন খাঁ’র ম্যুরালে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও জালাল মেলার আহবায়ক ইমদাদুল হক তালুকদার, সদস্য সচিব ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) রাজিব হোসেন,উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা বেগম সুমি,কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ এনামুল হক পিপিএম,বাংলা একাডেমির সাংস্কৃতি বিভাগের উপ-পরিচালক সাইমন জাকারিয়া,জালাল উদ্দিন খাঁ’র পৌত্র গোলাম মোরশেদ খান,গোলাম ফারুক খান প্রমুখ।
পরে বিকাল ৪টায় কেন্দুয়া জয়হরি স্প্রাই সরকারি উচ্চবিদ্যালয় খেলার মাঠে জালাল মঞ্চে আলোচনা সভায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমদাদুল হক তালুকদারের সভাপতিত্বে এবং ‘ভাইসাব’ খ্যাত সামিউল হক ভূঁইয়ার সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টু। এসময় মুঠোফোনে মূখ্যআলোচকের বক্তব্য রাখেন স্বাধীনতা পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রাবন্ধিক ও শিক্ষাবিদ অধ্যাপক যতীন সরকার। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন,নেত্রকোনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাফিকুজ্জামান,কেন্দুয়া থানা অফিসার ইনচার্জ এনামুল হক পিপিএম। আলোচক ছিলেন- প্রাবন্ধিত কেএইচ মাসুদ সিদ্দিকী,বাংলা একাডেমির লোকসংস্কৃতি গবেষক সাইমন জাকারিয়া,বাউল সাধক জালাল উদ্দিন খাঁ’র দুই পৌত্র লেখক গোলাম মোরশেদ খান ও গোলাম ফারুখ খান।
দ্বিতীয় দিনের আলোচনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আলোচক ছিলেন- নেত্রকোনার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সুখময় সরকার,উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) রাজিব হোসেন, মূখ্য আলোচক ছিলেন-জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড.আব্দুস সামাদ,ড.এইচএম সহিদুর রহমান,নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র লেকচারার আসিফ বিন আলী,বাংলা একাডেমির কবি পিয়াস মজিদ,প্রথম আলোর জেলা প্রতিনিধি পল্লব চক্রবর্তী এবং তৃতীয় দিন আলোচনায় মূখ্য আলোচক ছিলেন – লেখক গবেষক আলী আহম্মদ খান আইয়োব। আরও আলোচক ছিলেন- নেত্রকোনা জেলা উদীচী সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান খান,কবি সরোজ মোস্তফা,নেত্রকোনা শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি অধ্যাপক সাফি উল্লাহ এবং ছড়াকার ও লোকসাহিত্য গবেষক সঞ্জয় সরকার।
এছাড়া প্রতিদিন বিকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত মেলামঞ্চে জালাল গীতিকার বাউলগান পরিবেশন করেন প্রখ্যাত বাউল কবি সুনীল কর্মকার,লোকশিল্পী আব্দুল কুদ্দুছ বয়াতী,জনপ্রিয় বাউল কবি আব্দুস সালাম সরকার,বাউল উমেদ আলী ফকির,হবিল সরকার,রুবি সরকার,ফকির চান,আলেয়া সরকার,আবুল বাশার তালুকাদ,সবুজ সরকার,মুকুল সরকার,বাবুল সিরাজুল,সোমা সরকার,রহমান জীবনসহ ৬০ থেকে ৭০ জন বাউলশিল্পী।
জালাল মেলার সদস্য সচিব ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) রাজিব হোসেন জানান,মেলায় ৪০টির মত বিভিন্ন পণ্যের স্টল বসেছে এবং পুতুলনাচ, নাগরদোলাসহ বর্ণিল সাজে সজ্জিত করা হয় জালাল মঞ্চ। দ্বিতীয় দিন বাউল গানের পাশাপাশি জমিলা বিদ্যানিকেতনের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় জালাল জীবনীভিত্তিক নাটক “মানুষ রতন” পরিবেশিত হয় রাত ৮টায়। এছাড়া সাধক জালাল উদ্দিন খাঁ স্মরণে ‘ভাবতরঙ্গ’ নামে একটি চমৎকার স্মরনিকা প্রকাশ করা হয়েছে।
জালাল মেলার আয়োজক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমদাদুল হক তালুকদার বলেন,একুশে পদকপ্রাপ্ত আত্মন্ধানী বাউল সাধক জালাল উদ্দিন খাঁ’র জন্মবার্ষিকীতে
এই প্রথম ৩দিন ব্যাপী জালাল মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রচন্ড তাপদাহেও প্রতিদিন বাউলপ্রেমি প্রচুর মানুষের সসমাগম হয়েছে মেলায়। তাছাড়া  সুশৃঙ্খল ভাবে গভীর রাত পর্যন্ত জালালগীতি পরিবেশনা মানুষ উপভোগ করেছেন।  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমদাদুল হক তালুকদার   পুলিশ প্রশাসনসহ সকল সামাজিক,সাংস্কৃতিক,রাজনৈতিক,সাংবাদিক এবং এলাকাবাসীর ব্যাপক সহযোগীতায় সুন্দর ও সুষ্ঠু ভাবে মেলাটি সফলভাবে  সমাপ্ত হওয়ায় সংশ্লিষ্ট সকল ধন্যবাদ জানিয়েছেন।