ঢাকাবৃহস্পতিবার , ৩০ মে ২০২৪
  • অন্যান্য

মেহেরপুরে ফুটবল গায়ে লাগায় তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্রকে মারধর

আজকের বিনোদন
মে ৩০, ২০২৪ ৬:৫৬ অপরাহ্ণ । ৯৯ জন
Link Copied!
দৈনিক আজকের বিনোদন সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মেহেরপুর জেলা প্রতিনিধিঃ
গায়ে ফুটবল লাগোকে কেন্দ্র করে বিশ্বনাথপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতৃীয় শ্রেনীর এক ছাত্রকে শ্রেণিকক্ষ থেকে উঠিয়ে নিয়ে শুন্যে উঠিয়ে ফেলে দেবার অভিযোগ উঠেছে মাহাবুবুল (৩২) এর বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে মুজিবনগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আহত রিজন বিশ্বনাথপুর গ্রামের মিরাজুল শেখের ছেলে।
স্থানীয়রা ও রিজনের সহপাঠিরা জানান, গত মঙ্গলবার বিকালে রিজন মাঠে ফুটবল খেল ছিলো। এসময় রিজনের বল একই গ্রামের মহিবুলের ছেলে শাফিন (৮) এর গায়ে লাগে। এরপর গতকাল বুধবার দুপুরে শাফিনের বাবা ও বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোবারক আলীর ভাগ্নে মহিবুল বিশ্বনাথপর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এসে ক্লাস রুম থেকে রিজনকে বের করে নিয়ে দু পা ধরে ছুড়ে আছাড় মারে । পরে তাকে দু পা ধরে বিদ্যালয়ের আঙ্গিনায় ছেচরাতে থাকে। বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা ইয়াসমিন খাতুন তাকে উদ্ধার করে। রিজনের পরিবার খবর পেয়ে তাকে মুজিবনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্র সোহান ও তামিম বলেন, রিজন আমাদের সাথে বসে ছিলো। ঐ ভয়ংকর লোকটা এসে তাকে একটানে বের করে নিয়ে দুপা ধরে শুন্যে তুলে ফেলে ছুড়ে ঘরের বাইরে ফেলে দেয়। এরপর আবার তার পা ধরে বিদ্যালয়ের সারা মাঠ ছেচরিয়ে নিয়ে বেরায়।
বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মোবারক আলী বলেন, ঘটনাটা সামাজিক ভাবে মিমাংসার চেষ্টা চলছে। তবে থানা থেকে এ বিষয়ে ফোন দিয়েছিলো আমারা কোন বক্তব্য দিইনি। তাই শাফিনের আত্মিয়স্বজন আমাকে বিদ্যালয়ে এসে শাসিয়েছে। শাসানোর বিষয়টি আমি মুজিবনগর থানা, মেহেরপুর পুলিশ সুপার সহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকের কাছে লিখিত অভিযোগের প্রস্তুতি নিচ্ছি।
বিদ্যালয়ের শহকারী শিক্ষক ( ভারপ্রপ্ত প্রধান শিক্ষক) শরিফুল ইসলাম বলেন, টিফিনের সময় রিজনকে ক্লাস থেকে বের করে নিয়ে কি করেছে আমি জানিনা। সে সময় আমি অন্য ক্লাসে ছিলাম। বিষয়টি স্কুল কমিটিকে জানানো হয়েছে।
বিদ্যালয় কমিটির সভাপতি মোছা: মর্জিনা খাতুন বলেন, বিদ্যালয় থেকে আমাকে কিছু জানানো হয়নি। এখানে আমার মেয়েে পড়ে। বিদ্যালয়ে হট্টগোলোর খবর শুনে আমি এসেছি। এর বেশী কিছু আমি জানিনা।
মুজিবনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক সুপ্রিয়া গুপ্ত বলেন, রিজনের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। কোখাও কোথাও থেতলিয়ে গিয়েছে। তবে সে এখন আশংকা মুক্ত ।
মুজিবনগর থানার ওসি উজ্জল কুমার বলেন, রিজনের পরিবার মুজিবনগর থানায় একটি অভিযোগ করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।