ঢাকাবুধবার , ৩ জুলাই ২০২৪
  • অন্যান্য

হত্যার রহস্য উদঘাটন করলো পিবিআই

আজকের বিনোদন
জুলাই ৩, ২০২৪ ১১:১৮ পূর্বাহ্ণ । ৫০৪ জন
Link Copied!
দৈনিক আজকের বিনোদন সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আশিকুর রহমান :-

নরসিংদীর শিবপুরে অটোচালক রবিউল ইসলাম (১৮) হত্যা রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) নরসিংদী। দীর্ঘ ৯ মাস পর এ হত্যার রহস্য উদঘাটন হলো বলে পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) নরসিংদীর পুলিশ সুপার, (অতিরিক্ত ডিআইজি পদোন্নতিপ্রাপ্ত) মোঃ এনায়েত হোসেন মান্নান জানান। তিনি আজ বুধবার (৩ জুলাই) দুপুরে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।
নিহত ব্যক্তি হলেন শিবপুর উপজেলার দত্তের গাঁ গ্রামের মৃত শফিকুল ইসলাম ওরফে সুবজের ছেলে। এ ঘটনায় পুলিশ ৭ জনকে আটক করেছেন। আটকৃতরা হলেন, শিবপুর উপজেলার দত্তের গাঁ গ্রামের শাহজান মিয়ার ছেলে নাহিদ শেখ (২২), একই গ্রামের মস্তফা মিয়ার ছেলে হুমায়ুন (৪০) ও মিলন খানের ছেলে লিটন খান (৪৫), একই উপজেলার মাহিমপুর গ্রামের রতন বাবুর্চির ছেলে জুবায়ের হাসান অমি(১৯), পশ্চিমপাড়া গ্রামের হাসিম উদ্দিন ভূঁইয়ার ছেলে শাজিদুল ইসলাম হাসিব(১৯), রকিবুল(২০) ও নিহাল। গ্রেপ্তারকৃত আসামীর মধ্যে ৫জনই হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন।
পুলিশ সুপার জানান, গত বছরের ২৯ অক্টোবর সকালে নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার সাতপাইকা এলাকায় নয়ন মিয়ার ধান ক্ষেতে জবাই করা একটি অজ্ঞাতনামা লাশ পড়ে রয়েছে। খবর পেয়ে পিবিআই নরসিংদীর একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ভিকটিমের লাশ সনাক্ত করেন এবং ঘটনার ছায়া তদন্ত শুরু করেন। ঘটনাটি গুরুত্ব দিয়ে মামলার তদন্তভারের দায়িত্ব দেন পিবিআইয়ের উপপরিদর্শক সাদেকুল সিকদারকে। নেশা ও অনলাইন জুয়ার টাকা সংগ্রহ করতেই ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা চালক রবিউল ইসলামকে হত্যা করা হয়। দীর্ঘ তদন্ত ও আসামীদের গ্রেপ্তার পর এমন তথ্য বের হয়ে আসে। প্রথমদিকে এ ঘটনায় রাকিবুল নামে একজনকে গ্রেপ্তারের পর নিহত রবিউলের ছিনতাই হওয়া অটোরিক্সাটির রং পরিবর্তন করে ৩০ হাজার টাকায় বিক্রির তথ্য পাওয়া গেলেও হত্যার রহস্য উদঘাটন সম্ভব হয়নি। পরে পিবিআই তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় বিভিন্ন সময়ে নরসিংদী, গাজীপুর, নারায়নগঞ্জ, ভৈরব, কিশোরগঞ্জ সহ অন্যান্য স্থানে অভিযান চালিয়ে এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত অন্য আসামীদের গ্রেপ্তারের পর হত্যার আসল রহস্য বেরিয়ে আসে। তিনি আরও জানান, গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা নিয়মিত মাদক সেবন করতো ও অনলাইনে জুয়া খেলতো। আসামীরা মাদক ও জুয়ার টাকা সংগ্রহের জন্যই মূলত অটো চালক রবিউলকে হত্যা করে তার অটোরিকশা ছিনতাইয়ের পরিকল্পনা করে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সাদেকুল সিকদার বলেন, গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা মাদক ও অনলাইন জুয়ায় আসক্ত। তারা মাদক ও জুয়ার টাকা জোগাড় করতেই অটোরিকশা ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যেই অটোচালক রবিউলকে গলাকেটে হত্যা করে।